× NOTICE For Sproutgigs Users! Please scroll 30-40 second each page ( scrool first to last each page ) for successfully completed this task , I manually check all things and pay so I will track your IP they Pay, Work Honestly. Must View 10 Posts !!!

লেবানন কাজের ভিসা পাওয়ার উপায়। লেবানন যেতে কত টাকা লাগে

লেবাননে টুরিস্ট ভিসা ও ওয়ার্ক পারমিট ভিসার মাধ্যমে খুব সহজেই যাওয়া যায়।লেবানন ভিসা বাংলাদেশ থেকে পাওয়া খুবই সহজ এবং যেকোনো ব্যক্তি চাইলে কিছু শর্তাদি অবলম্বন করে খুব সহজেই লেবানন ভিসা করে নিতে পারবেন। আজকের পোস্টে লেবানন কাজের ভিসা পাওয়ার উপায় ও লেবানন কাজের বেতন কত এই নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। তাহলে চলুন দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক:-

NOTICE For Sproutgigs Users! MUST CLICK ONE (1) BANNER ADS ON WEBSITE FOR DONE THIS TASK

লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা। লেবানন কাজের ভিসা 

লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আপনারা বাংলাদেশ থেকে চাইলে কোন এজেন্সির মাধ্যমে অথবা লেবানন দূতাবাসের মাধ্যমে করে নিতে পারবেন। এজেন্সির মাধ্যমে লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা করলে শুধু আপনাদেরকে প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্ট তাদের কাছে জমা দিতে হবে বাদবাকি সকল কিছু তারা দেখভাল করবে। আর এমবাসি অথবা দূতাবাসের মাধ্যমে লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা করতে হলে আপনাদেরকে অবশ্যই লেবানন সরকারি জব সাইটগুলোতে কাজের জন্য আবেদন করতে হবে যদি তারা আপনাকে কাজের জন্য মনোনীত করে থাকে তাহলে লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা দূতাবাসের মাধ্যমে করে নিতে পারবেন। লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আবেদনের কিছুদিনের মধ্যেই ভিসা হাতে পাওয়া সম্ভব। 

লেবাননে কোন কাজের চাহিদা বেশি 

বাংলাদেশ থেকে যারা লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে যেতে চান তারা অনেকেই লেবাননে কোন কাজের চাহিদা বেশি এই বিষয়ে ধারণা না নিয়েই চলে যান। লেবাননের বর্তমানে ক্লিনার,পেট্রোলপামের কাজ, শপিং মলের কাজ, বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ, ও ডেলিভারি বয়দের ভালো চাহিদা রয়েছে। তবে অনেক বাঙালি লেবাননে হোটেল ও রেস্টুরেন্টে কাজ করতেও দেখা যায়। বাংলাদেশীদের জন্য সুখবর লেবাননে ক্লিনারের কাজে সব থেকে বেশি কর্মী রয়েছে। তাই লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে নির্দ্বিধায় সেখানে যাওয়া যেতে পারে। 

লেবানন যেতে কত টাকা লাগে 

লেবাননের দূতাবাস বাংলাদেশে অতীতে না থাকায় ভারতীয় embassy ব্যবহার করে আগে বাংলাদেশীদের লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসা করে নিতে হতো। অতীতে লেবানন ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য ৫ লাখ থেকে ছয় লাখ টাকা খরচ হলেও এখন বাংলাদেশে লেবানন দূতাবাস ভিসা সেন্টার চালু হয় ফ্রি ভিসা পেতে তিন লক্ষ টাকারও কম খরচ হচ্ছে। ২৫০০ থেকে ২৬০০ ডলার খরচ করার মাধ্যমে খুব সহজেই লেবানন ফ্রি ভিসা হাতে নিয়ে আপনারা লেবানন গিয়ে কাজ করতে পারবেন।

লেবানন কাজের বেতন কত 

লেবাননে যারা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা নিয়ে বিভিন্ন কোম্পানির অধীনে কাজ করতেন তাদেরকে ও ৩০০ থেকে ৩৫০ ডলার বেতন দেওয়া হয়। তাছাড়া তারা ওভারটাইম করে ও অন্যান্য বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার মাধ্যমে আরো ১০০ ডলার আয় করতে পারতো।যারা পেট্রোল পাম্প ও রেস্টুরেন্টে কাজ করে থাকেন তারা মাসের ৪০০ থেকে ৫০০ ডলার বেতন পেয়ে থাকেন। 

লেবানন ১ টাকা বাংলাদেশের কত টাকা। লেবাননের মুদ্রার নাম কি

লেবাননের মুদ্রাকে লেবানিস পাউন্ড বলা হয়ে থাকে। বর্তমানে লেবাননের এক পাউন্ড সমান বাংলাদেশি 0.0073 টাকার কাছাকাছি। লেবাননের ১০০০ পাউন্ড সমান ৭.৩৪ টাকার মতো হয়ে থাকে।

লেবানন বাংলাদেশ দূতাবাস কোথায় অবস্থিত 

লেবানন বাংলা দূতাবাস বা বাংলাদেশের লেবাননের দূতাবাস কোথায় চালু হয়েছে এ বিষয়ে অনেকেই জানেন না। লেবাননের দূতাবাস বাংলাদেশের QCFC+768, Dhaka 1212 অবস্থিত। ঢাকার গুলশানে Honorary Consulate নাম করলে খুব সহজেই গাড়িতে করে চলে যেতে পারবেন। 

লেবানন সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন?

প্রশ্ন ১: লেবাননের রাজধানীর নাম কি?

উত্তর:- লেবানন এশিয়া মহাদেশের একটি দেশ এবং লেবাননের রাজধানীর নাম হলো বৈরুত। বৈরুত হলো লেবাননের বৃহত্তম একটি শহর। 

প্রশ্ন ২ঃ লেবাননে মুসলিম জনসংখ্যা কত?

উত্তর:- লেবানন মুসলিম প্রধান একটি দেশ। লেবাননের ৬৭.৮% মুসলিম, ৩২.৪ শতাংশ খ্রিস্টান ও ৪.৫ শতাংশ অন্যান্য ধর্মের লোকেরা বসবাস করে থাকে। 

Leave a Comment